বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ২০২২ | bKash mobile banking services 2022

বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ২০২২ - নিয়ে আজকের এই ব্লগ পোস্টে আপনাদের সাথে বিস্তারিত আলোচনা করবো । বিকাশকে আপনারা সবাই কম-বেশি জানেন । তারপরও আপনাদের সামনে ব্রাক ব্যাংকের জনপ্রিয় মোবাইল ব্যাংকিং সেবা “বিকাশ” নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো । বিকাশের আদ্যপান্ত্য নিচের লেখা থেকে জানতে পারবেন । আশা করি আপনাদের ভালো লাগবে । তাহলে চলুন শুরু করা যাক ----


বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা

আরও পড়তে পারেন: ঢাকা স্কয়ার হাসপাতালের ঠিকানা ও ডাক্তারদের তালিকা

বিকাশ কি? | বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ২০২২

প্রথমেই আমাদের জানতে হবে বিকাশ আসলে কি? বাংলাদেশের মধ্যে বিকাশ হচ্ছে শীর্ষস্থানীয় মোবাইল ফোন ভিত্তিক অর্থ স্থানান্তর Financial Management System (FMS) সেবাদানকারী একটি প্রতিষ্ঠান । বিকাশ মোবাইলের মাধ্যমে ব্যাংকিয়ের বাংলাদেশের সব থেকে বড় প্রতিষ্ঠান । বিকাশ চালু করা হয়েছিল এদেশে যাদের ব্যাংক হিসাব নাই তাদের আর্থিক সেবা প্রদান করার জন্য ।

বিকাশের গ্রাহকরা তাদের মুঠো ফোন থেকে *২৪৭# করে অথবা স্মার্টফোনে বিকাশ অ্যাপের মাধ্যমে তাদের মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্টে নগদ টাকা জমা করা, নগদ টাকা উত্তোলন করা, টাকা পাঠানো, টাকা একাউন্টে যোগ করা, রেমিটেন্স গ্রহন করা, মোবাইল রিচার্জ, ইউটিলিটি বিল প্রদান এবং অনলাইনের মাধ্যমে বিভিন্ন জিনিসের মুল্য পরিশোধ ইত্যাদি সেবাগুলো নিতে পারবেন ।

বিকাশের ইতিহাস | বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ২০২২

বিকাশ যাত্রা শুরু করে ২০১১ সালে । মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের Money in Motion LLC এবং বাংলাদেশের BRAC Bank Limited – এর যৌথ উদ্যোগে বিকাশের পথ চলা শুরু হয় । ২০১৩ সালের এপ্রিলে বিশ্বব্যাংক গ্রুপের সদস্য International Finance Corporation (IFC) বিকাশের নায্য অংশীদার হয় এবং ২০১৪ সালের মার্চে Bill & Melinda Gates Foundation বিকাশের বিনিয়োগকারী হয় । ২০১৮ সালের এপ্রিলে চীনের বিখ্যাত আলিবাবা গ্রুপের অঙ্গসংস্থা Alipay-এর আর্থিক প্রতিষ্ঠান Ant Financial বিকাশ এর Equity অংশীদার হয় । বিকাশ BRAC Bank Limited – এর অংশিদার হিসাবে কাজ করে এবং অন্যান্য আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে আর্থিক সহায়তা করে থাকে ।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের Fortune Magazine ২০১৭ সালে তাদের “Change the World” তালিকার শীর্ষ ৫০টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ২৩তম স্থানে রেখেছে বিকাশকে । ২০১৭ সালে World HRD Congress বিকাশকে এশিয়ার সেরা কর্মি হিসাবে ঘোষনা করে এবং ২০১৮ সালে Asiamoney পত্রিকাটি বিকাশকে এশিয়ার সেরা ডিজিটাল ব্যাংক হিসাবে ঘোষনা করে । ২০১৯ সালে FMS ব্র্যান্ড বিভাগের মধ্যে বিকাশকে বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফেরাম “সেরা ব্র্যান্ড পুরস্কার ২০১৯” – ভূষিত করে ।

আরও পড়তে পারেন: নগদ ইসলামিক একাউন্ট | নগদ ইসলামিক অ্যাপ

বিকাশ কত সালে চালু হয়? | বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ২০২২

বিকাশ যাত্রা শুরু করে ২০১১ সালে । মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের Money in Motion LLC এবং বাংলাদেশের BRAC Bank Limited – এর যৌথ উদ্যোগে বিকাশের পথ চলা শুরু হয় ।

বিকাশ অ্যাপস | বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ২০২২

বিকাশ অ্যাপস একটি মোবাইল সফটওয়ার বা অ্যাপলিকেশন । এই অ্যাপসের মাধ্যমে যে কোনো ধরনের লেনদেন খুব সহজে এবং খুব দ্রুততার সাথে করা সম্ভব । একজন বিকাশ গ্রাহক এই অ্যাপলিকেশনের মধ্যমে লেদেনের সম্পূর্ন নিয়ন্ত্রন করতে পারে । এই অ্যাপটি ব্যবহার করতে একটি স্মার্টফোন, একটি সক্রিয় বা চালু বিকাশ একাউন্ট এবং ইন্টারনেট সংযোগ থাকতে হয় । নানান রকম সুবিধা রয়েছে এই অ্যাপটিতে । এই অ্যাপটিতে বাংলা এবং ইংরেজি উভয় ভাষতে ব্যবহার করা যায় । ২০১৯ সালে বিকাশ অ্যাপটি আপডেট করে নতুন ফিচার যোগ করে পুনরায় চালু করা হয় ।

বিকাশ অ্যাপস ডাউনলোড | বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ২০২২

বিকাশের দুই ধরনের অ্যাপ রয়েছে । প্রথমটি হচ্ছে গ্রাহক ভিত্তিক এবং দ্বিতীয়টি হচ্ছে এজেন্ট ভিত্তিক । দুইটি অ্যাপই Google Play Store – এ পাবেন । আপনাদের সুবিধার্থে এখানে লিংক দেওয়া হলো । ডাউনলোড লিংক । এখান থেকে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন ।

বিকাশ অ্যাপ এর সুবিধা | বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ২০২২

একজন বিকাশ একাউন্টের অধিকারি নানা ধরনের সুবিধা ভোগ করে থাকে, যা নিম্নরুপ ----

বিকাশ একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন, ব্যাংক থেকে টাকা আনা এবং কার্ড, ট্রানজেকশন, বিকাশ অফার, বিকাশ ট্রানজেকশন শর্টকাট, বিকাশ সাজেশন, মোবাইল রিচার্জ, বিকাশ বিল পেমেন্ট, একাউন্ট ব্যবহারে সিকিউরিটি, বিকাশ একাউন্ট লিমিট, ব্যালেন্স চেক, বিকাশ রেফার ।

বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম | বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ২০২২

একটি বিকাশ একাউন্ট খোলার জন্য আপনি এজেন্টের কাছে যেতে পারেন, নিকটস্থ বিকাশ গ্রাহক সেবা কেন্দ্র থেকে একাউন্ট খুলতে পারবেন এবং আপনি নিজেও বিকাশ অ্যাপস এর মাধ্যমে খুলতে পারবেন ।

একাউন্ট খুলতে যা প্রয়োজন:

১। মোবাইল ফোন

২। জাতীয় পরিচয়পত্রের মুল কপি + ফটোকপি

৩। এক কপি ছবি ।

বিকাশ একাউন্ট খোলার পর আপনাকে আপনার বিকাশ মোবাইল মেন্যুটি সচল করে নিতে হবে । আপনার মোবাইল মেন্যু সচল করতে নিচের পদ্ধতিগুলো অনুসরণ করুনঃ

১। বিকাশ মোবাইল মেন্যুতে যেতে হলে ডায়াল করুন *২৪৭# ।

২। “এক্টিভেট মোবাইল মেন্যু” বেছে নিন ।

৩। বিকাশ একাউন্টের জন্য ৫ সংখ্যার পিনটি প্রবেশ করান ।

৪। নিশ্চিত করার জন্য আপনার পিন নাম্বরটি আবার প্রবেশ করান ।

** আপনার বিকাশের নির্ধারিত পিন নম্বরটি সকল সময় গোপন রাখুন ।

সকল প্রক্রিয়া ঠিক ভাবে সম্পন্ন হবার পর আপনার মোবাইল নম্বরটি একটি বিকাশ একাউন্ট নম্বর হিসেবে গণ্য হবে । আপনার বিকাশ একাউন্ট এর মাধ্যমে প্রাথমিক ভাবে মোবাইল রিচার্জ, ক্যাশ ইন অথবা টাকা গ্রহণ করতে পারবেন । এরপর আপনার পূরণকৃত KYC ফরম (বিকাশের থেকে সহবরাহ কৃত) এর তথ্য যাচাই-বাছাই হবার পর ৩-৫ দিনের মধ্যে আপনি ক্যাশ আউট, মোবাইল রিচার্জ, পেমেন্ট এবং বিকাশ এর অন্যান্য সেবা গুলো উপভোগ করতে পারবেন ।

আপনার একাউন্টটি সম্পূর্ণভাবে সক্রিয় হওয়ার পর *২৪৭# ডায়াল করে দিন রাত ২৪ ঘণ্টা, সপ্তাহে ৭ দিন বিকাশের সেবা ব্যবহার করতে পারবেন । একজন গ্রাহক গ্রাহক সেবা কেন্দ্র অথবা গ্রাহক সেবা থেকে একাউন্ট খুললে সাথে সাথে বিকাশ এর সকল সেবা উপভোগ করতে পারবেন ।

আরও পড়তে পারেন: ওয়ালটন মোবাইল কম দামে সেরা ৫টি ফোন 

বিকাশ ব্যালেন্স চেক কোড | বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ২০২২

বিকাশ একাউন্ট চেক করার জন্য যা যা করতে হবে তা নিম্নরুপ:

  • প্রথমে আপনার মোবাইলে *২৪৭# ডায়াল করুন ।
  • যে সিমে বিকাশ একাউন্ট খোলা সেটি সিলেক্ট করুন ।
  • *২৪৭# ডায়াল করার পর সম্পূর্ণ মেনু ইন্টারফেসটি ওপেন হবে । এই ইন্টারফেসের ৮ নাম্বর অপশন বা My BKash সিলেক্ট করুন ।
  • এরপর নতুন আরেকটি ইন্টারফেস আসবে । সেখান থেকে 1 নাম্বার বা Check Balance অপশনটি সিলেক্ট করুন ।
  • এরপর আরেকটি ইন্টারফেস আসবে সেখানে আপনার বিকাশ পাসওয়ার্ডটি টাইপ করে সেন্ড অপশনে ক্লিক করুন ।
  • এবার যে ইন্টারফেসটি ওপেন হবে সেখানে আপনি আপনার ব্যালেন্স দেখতে পারবেন ।

বিকাশ পিন ভুলে গেলে করনীয় কি? | বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ২০২২

বিশেষ করে বিকাশের কাস্টমার কেয়ার সেন্টারের ফোন নম্বর ১৬২৪৭, বিকাশ ফেসবুক পেজ এর লাইভ চ্যাট অপশন এবং ইমেইল এর মাধ্যমে যথাযথ তথ্য দিয়ে নতুন পিন রিসেট এর জন্য অস্থায়ী পিন পেতে পারেন গ্রাহক ।

অথবা

ধাপে ধাপে কিভাবে পিন রিসেট করতে পারবেন তা https://www.bkash.com/bn/pin-reset এই লিংকে ক্লিক করে জেনে নিতে পারবেন গ্রাহক ।

বিকাশ হেল্প লাইন নাম্বার | বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ২০২২

বিশেষ করে বিকাশের কাস্টমার কেয়ার সেন্টারের ফোন নম্বর ১৬২৪৭ বা ০২-৫৫৬৬৩০০১ ।

বিকাশ লাইভ চ্যাট | বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ২০২২

বিকাশ ওয়েব সাইটে অথবা তাদের ফেসবুক পেজে সরাসরি লাইভ চ্যাট করতে পারেন । বিকাশ ২৪/৭ নিরবিচ্ছিন্ন সেবা দিয়ে যাচ্ছে । আপনার যে কোনো প্রয়োজনে নিচের যেকোনো মাধ্যমে যোগাযোগ করতে পারেন --

ইমেইল করুন: support@bkash.com

লাইভ চ্যাট: https://livechat.bkash.com/

ফেসবুক ফ্যান পেজ: https://www.facebook.com/bkashlimited

বিকাশ টাকা দেখার কোড | বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ২০২২

বিকাশের ব্যালেন্স দেখেতে গেলে *২৪৭# ডায়াল করতে হবে ।

বিকাশ ক্যাশ আউট চার্জ | বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ২০২২

বর্তমানে বিকাশ গ্রাহক একটি প্রিয় এজেন্ট নাম্বারে মাসে ২৫০০০ টাকা পর্যন্ত হাজারে ১৪ টাকা ৯০ পয়সা খরচে ক্যাশ আউট করতে পারবেন । এর মধ্যে ভ্যাটসহ সব খরচ অন্তর্ভুক্ত থাকবে এবং বিকাশ গ্রাহকের ক্যাশ আউটের জন্য বাড়তি কোনো খরচ করতে হবে না ।

প্রিয় এজেন্ট এবং ২৫০০০ এর বেশি ক্যাশ আউট করলে ১৮টাকা ৫০ পয়সা প্রযোজ্য হবে । যে কোনো এটিএম বুথ থেকে ক্যাশ আউট করলে ১৪ টাকা ৯০ পয়সা খরচ হবে ।

বিকাশ এজেন্ট হওয়ার নিয়ম | বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ২০২২

বিকাশ এজেন্ট হওয়ার নিয়ম এই লিংকে গিয়ে দেখে নিতে পারেন । 

বিকাশে সেন্ড মানি | বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ২০২২

  • একজন গ্রাহক এক মাসে ৫টি প্রিয় নাম্বারে (বিকাশ গ্রাহক) এজেন্ট বাদে বিনা চার্জে টাকা সেন্ড করতে পারবেন ।
  • বিকাশ অ্যাপ দিয়ে এবং USSD কোড ডায়াল করে যে কোনো গ্রহকের নাম্বারে ১০০ টাকা বা তার নিচে সেন্ড মানি করতে কোনো চার্জ লাগবে না ।
  • ৫টি প্রিয় নাম্বারে ২৫০০০ টাকা পর্যন্ত এক মাসে সেন্ড মানি করতে পারবেন । এর জন্য কোনো চার্জ লাগবে না ।
  • প্রতি মোসে ২৫ হাজার ১ টাকা থেকে ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত প্রতি লেনদেনে ৫ টাকা হারে চার্জ দিতে হবে ।
  • প্রিয় নাম্বারে ৫০ হাজার টাকার বেশি হলে ১০ টাকা হারে চার্জ দিতে হবে ।
  • একজন গ্রাহক সর্বোচ্চ ৫টি প্রিয় নাম্বার ব্যবহার করতে পারবেন ।
  • বিকাশ অ্যাপ এবং USSD কোড ডায়ালের মাধ্যমে এবং উভয় ভাবেই সেন্ডমানি করতে পারবেন ।

বিকাশে প্রিয় নাম্বার সেট করার নিয়ম | বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ২০২২

বিকাশ অ্যাপের মাধ্যমে প্রিয় নাম্বার অ্যাড করার নিয়ম:

  • বিকাশ অ্যাপের মাধ্যমে প্রিয় নাম্বার সেট করতে প্রথমে বিকাশ অ্যাপে প্রবেশ করুন,
  • এরপর পিন দিয়ে অ্যাপ লগিন করুন,
  • অ্যাপের মধ্যে “সেন্ড মানি” লেখায় ক্লিক করুন,
  • “ফ্রি সেন্ড মানি’র জন্য ট্যাপ করুন” লেখায় ক্লিক করুন,
  • প্রদর্শিত পেজে আপনার প্রিয় নাম্বারের তালিকা (আগেই যদি থাকে) দেখতে পাবেন,
  • প্রিয় নাম্বার সেট করতে নিচের দিকে থাকবে “যোগ করুন” লেখাতে ক্লিক করুন,
  • এরপর প্রিয় নাম্বার হিসাবে যে নাম্বারটি যোগ করতে চান সেটি টাইপ করুন,
  • এরপর আপনার পিন নাম্বার চাইবে সেটি দিয়ে সাবমিট করলেই প্রিয় নাম্বার যোগ হয়ে যাবে ।

আপনি আপনার ফিচার ফোন থেকে *২৪৭# ডায়াল করেও প্রিয় নাম্বার সেট করতে পারবেন:

  • প্রথমে আপনার মোবাইলে *২৪৭# ডায়াল করুন,
  • পরবর্তি ইন্টারফেসের মেনুতে My Bkash বা ৮ নাম্বার সিলেক্ট করুন,
  • এরপরের ইন্টারফেসের মেনুতে Priyo Numbers বা ৪ নাম্বার সিলেক্ট করুন,
  • এরপরের ইন্টাফেসে ১ সিলেক্ট করুন,
  • এরপরের ইন্টারফেটিতে আবার ১ সিলেক্ট করুন,
  • এরপর যে নাম্বারটি প্রিয় নাম্বার করতে চান সেটি টাইপ করুন,
  • এরপর আপনার বিকাশের পিন সাবমিট করে সেন্ড করুন, ব্যাস এবার প্রিয় নাম্বার অ্যাড হয়ে যাবে ।

বিকাশ নাম্বার পরিবর্তন | বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ২০২২

আপনাদের জ্ঞ্যাতার্থে জানিয়ে রাখি আপনি যে নাম্বার দিয়ে একবার বিকাশ একাউন্ট খুলেছেন সেটি আর পরিবর্তন করতে পারবেন না । আবার আপনি যে ন্যাশনাল আইডি কার্ড দিয়ে একবার বিকাশ একাউন্ট খুলেছে সেই ন্যাশনাল আইডি কার্ড দিয়ে আরেকটি বিকাশ একাউন্ট খোলা সম্ভব নয় । আপনি ইচ্ছা করলে মোবাইল অপারেটর চেঞ্জ করতে পারবেন, এজন্য যে মোবাইল অপারেটরে যেতে চান তাদের কাস্টমার কেয়ারে কথা বলুন ।।

বন্ধুরা আশা করি আজকের "বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ২০২২" আলোচনা আপনাদের ভালো লেগেছে । এই রকম আনকমন এবং আপডেট সমস্ত লেখা পেতে চোখ রাখুন “বাংলা আইটি ব্লগ ৩৬০” ব্লগে । এছাড়াও যদি আরও কোনও বিষয়ে লেখা পড়তে চান তাহলে কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করুন । আজ এ পর্যন্তই । আল্লাহ হাফেজ ।


আরও পড়ুন: Upay মোবাইল ব্যাংকিং বিস্তারিত ২০২২

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url